বুধবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৮ | ১, কার্তিক, ১৪২৫
 / আইন-আদালত / দুই দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে ২২ শিক্ষার্থী
নিজস্ব প্রতিবেদক, ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Thursday, 9 August, 2018 at 8:54 PM, Count : 208
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষে ২২ শিক্ষার্থীকে প্রেপ্তার করা হয়। পরে পুলিশের ওপর হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ দুই মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ২২ শিক্ষার্থীকে দুই দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গ্রেপ্তারকৃত ২২ শিক্ষার্থী বেসরকারি ইস্ট ওয়েস্ট, নর্থসাউথ, সাউথইস্ট ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

আজ বৃহস্পতিবার (০৯ আগস্ট) ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২০ শিক্ষার্থীর জামিন আবেদন না মঞ্জুর করেন। তবে বাকী দুই জনের জামিন আবেদন আগামী রোববার শুনানি হবে বলে দিন ধার্য করে কারাগারে পাঠান।

গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষার্থীদের দুই দিনের রিমান্ড শেষে তাদের আদালতে হাজির করে যতক্ষণ পর্যন্ত না মামলার তদন্ত শেষ হয় ততক্ষণ তাদের কারাগারে রাখার জন্য আবেদন করেন বাড্ডা থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জুলহাস মিয়া ও ভাটারা থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হাসান মাসুদ।

দুই থানার দায়েরকৃত দুই মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ২০ শিক্ষার্থীর পক্ষে আদালতে জামিন আবেদন করেন ঢাকা আইনজীবী সমিতির আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান হওলাদারসহ প্রমুখ আইনজীবী। এসময় শুনানি শেষে গ্রেপ্তারকৃত ২০ শিক্ষার্থীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন এবং বাকী দুই শিক্ষার্থীর জামিন আবেদনের শুনানির জন্য আগামী রোববার দিন ধার্য করে তাদের সবাইকে আদালত কারাগারে পাঠানোর জন্য নির্দেশ দেন।

এসময় জামিন আবেদনের শুনানিতে আইনজীবীরা বলেন, আসামিরা সকলেই ছাত্র হওয়ার পরেও এজাহারে এটা উল্লেখ করা হয়নি। ঘটনায় যারা মার খেলো তারাই কিনা এখন আসামি হলো।

কারাগারে যাওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন : রিসালাতুন ফেরদৌস, রেদোয়ান আহম্মেদ, রাশেদুল ইসলাম, বায়েজিদ, মুশফিকুর রহমান, ইফতেখার আহম্মেদ, রেজা রিফাত আখলাক, এএইচএম খালিদ রেজা ওরফে তন্ময়, তরিকুল ইসলাম, নূর মোহাম্মদ, সীমান্ত সরকার, ইকতিদার হোসেন, জাহিদুল হক ও হাসান, আজিজুল করিম অন্তর, সামাদ মর্তুজা বিন আহাদ, ফয়েজ আহম্মেদ আদনান, সাবের আহম্মেদ উল্লাস, মেহেদী হাসান, শিহাব শাহরিয়ার, সাখাওয়াত হোসেন নিঝুম ও আমিনুল এহসান বায়েজিদ।

উপরের প্রথম ১৪ জন বাড্ডা থানা ও শেষ ৮ জন ভাটারা থানার মামলার আসামি। এর আগে আদালত গত ৭ আগস্ট গ্রেপ্তারকৃত ২২ শিক্ষার্থীর দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বাড্ডা থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জুলহাস মিয়ার দাবি, গত ৬ আগস্ট দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু শিক্ষার্থীরা আফতাবনগর মেইন গেটের রাস্তায় যানবাহন চলাচলে বাধা দেন। এসময় তারা সকলে লাঠিসোঁটা, ইটপাটকেল দিয়ে রাস্তার গাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর চালান। পুলিশ তাদের এ কর্মকান্ডে বাধা দিতে গেলে আসামিরা পুলিশদের ওপর হামলা চালায়।

অন্যদিকে ভাটারা থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হাসান মাসুদের দাবি, আসামিরা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার অ্যাপোলো হাসপাতাল ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় লোহার রড, লোহার পাইপ ও ইট দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা করেন। আসামিরা বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ঘটনাস্থলের আশপাশের দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসার দরজা, জানালা ভাঙচুর করেন।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162