এই মাত্র পাওয়া : সংসদ থেকে তিন মাসের ছুটি নিয়েছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফ
মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮ | ৩, আশ্বিন, ১৪২৫
 / মতামত /  আরবি নববর্ষ
মাহাবুব আলম
Published : Tuesday, 11 September, 2018 at 5:02 PM, Update: 11.09.2018 5:07:19 PM, Count : 240
ছবি- ইন্টারনেট

ছবি- ইন্টারনেট

কালের চক্র ঘুরে আমাদের কাছে এসেছে আরবি বছরের প্রথম মাস মুহাররম। শুরু হলো আরেকটি নতুন বছর ১৪৪০ হিজরি। শেষ হল হিজরি ১৪৩৯ সাল। মুসলমানদের নিকট আরবি নববর্ষ অতীব গুরুত্বপূর্ণ। প্রতি বছর আরবি নববর্ষ মুসলমানদের কাছে ইবাদতের বার্তা নিয়ে হাজির হয়। আরবি মাস হিসাব করেই আমরা বিভিন্ন ইবাদত যেমন- রোযা, ইদ, হজ্জ, কুরবানি, ইত্যাদি করে থাকি। 

পবিত্র কুরঅানে আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেন, "লোকেরা অাপনাকে নতুন চাঁদ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করে, আপনি বলুন, তা হলো মানুষের এবং হজের জন্য সময় নির্ধারণকারী"। (সুরা- বাকারা) এ আয়াত দ্বারা স্পষ্ট বুঝা যায় যে, আল্লাহ তায়ালা বান্দাদের হিসাব-নিকাশের সুবিধার্থে চাঁদকে পঞ্জিকাস্বরূপ সৃষ্টি করেছেন।
মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) মক্কার কুরায়েশদের দ্বারা নির্যাতিত হয়ে ৬২২ খ্রিস্টাব্দে মক্কা থেকে মদীনায় আগমন করেন। তাঁর এই জন্মভূমি ত্যাগ করার ঘটনাকে ইসলামে "হিজরত" নামে আখ্যা দেয়া হয়। আল্লাহর নবী মুহাম্মদ (সা.)- এর মক্কা থেকে মদিনায় হিজরতের ঘটনাকে চিরস্মরণীয় করে রাখার উদ্দেশ্যেই হিজরি সাল গণনার শুভ সূচনা করা হয়। ইসলামের দ্বিতীয় খলিফা হযরত ওমর (রা.)- এর শাসনামলে ১৭ই হিজরি অর্থাৎ রসুল (সা.)- এর মৃত্যুর সাত বছর পর চন্দ্র মাসের হিসাবে এই হিজরি সাল প্রবর্তন করেন। এর আগ পর্যন্ত  মুসলমানদের জন্য সতন্ত্র কোন পঞ্জিকা ছিলনা। একারণে বিভিন্ন সময় রাষ্ট্রীয় কাজকর্মে সাহাবীরা সঠিক সময় নিরূপণ করতে পারতেন না। 

সাহাবী হযরত আবু মুসা আশআরী (রা.)- এর চিঠি দ্বারা সেটাই বুঝা যায়। কেননা ১৬ হিজরিতে হযরত আবু মুসা আশআরী (রা.) ইরাক ও কুফার গভর্নর ছিলেন তখন তিনি খলিফা ওমর (রা.)- এর নিকট এ মর্মে চিঠি লিখেন যে,  আপনার পক্ষ থেকে কোন পরামর্শ কিংবা কোন নির্দেশ সম্বলিত যেসব চিঠি আমাদের নিকট আসে তাতে দিন, মাস, বছর, তারিখ ইত্যাদি না থাকায়, কোন চিঠি কোন দিনের অথবা কোন নির্দেশ আগে বা পরের তা নিরুপণ করা আমাদের জন্য সম্ভব হয় না। এতে করে আমাদেরকে নির্দেশ কার্যকর করতে খুবই কষ্ট করতে হয়। অনেক সময় আমরা বিব্রত বোধ করি চিঠির ধারাবাহিকতা না পেয়ে। হযরত আবু মুসা আশআরীর চিঠি পেয়ে হযরত ওমর (রা.) পরামর্শ সভার আহ্বান করেন। এবং ইসলামি পঞ্জিকা প্রবর্তন করার কথা সবার দৃষ্টিতে আনেন। 

উক্ত পরামর্শ সভায় হযরত উসমান (রা.) হযরত আলী (রা.) সহ বিশিষ্ট অনেক সাহাবি উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত সকলের পরামর্শ ও মতামতের ভিত্তিতে ঐ সভায় হযরত ওমর (রা.) সিদ্ধান্ত দেন ইসলামি পঞ্জিকা প্রবর্তনের। তবে কোন মাস থেকে বর্ষের সূচনা করা হবে তা নিয়ে অনেকের মাঝে মতভেদ সৃষ্টি হয়। কেউ মত পোষণ করে রসুল (সা.) এর জন্মের মাস রবিউল আউয়াল থেকে বর্ষ শুরু করার জন্য। আবার কেউ কেউ মত পোষণ করেন রসুল (সা.) এর ওফাতের মাস থেকে বর্ষ শুরু করার জন্য । আবার অনেকেই  হুজুর (সা.) এর হিজরতের মাস থেকে বর্ষ শুরু করার জন্য মতামত দেন। এভাবে বিভিন্ন মতামত আলোচিত হওয়ার পর হযরত ওমর (রা.) বললেন, মহানবী (সা.) এর জন্মের মাস থেকে হিজরি সনের গণনা শুরু করা যাবে না। কারণ খ্রিস্টান সম্প্রদায় হযরত ঈসা (আ.) এর জন্মের মাস থেকেই খিস্ট্রাব্দের গণনা শুরু করেছিল। তাই রাসুলের (সা.) জন্মের মাস থেকে হিজরি সন সূচনা করা হলে খ্রিস্টানদের সাথে সাদৃশ্য হয়ে যাবে, যা মুসলমানদের জন্য পরিত্যাজ্য।

অাবার, রসুল (সা.) এর ওফাত দিবসের মাস থেকেও গণনা শুরু করা যাবে না, কারণ এতে হুজুর (সা.) এর মৃত্যু ব্যথা আমাদের মাঝে বারবার উত্থিত হবে। হযরত ওমর (রা.) এর এই সুক্ষ্ম বক্তব্যকে হযরত উসমান (রা.) ও হযরত আলী (রা.) একবাক্যে সমর্থন করলেন। অতঃপর বহু চিন্তাভাবনার পর হযরত ওমর ফারুক (রা.) হিজরতের বছর অর্থাৎ ৬২২ খ্রিস্টাব্দ থেকেই ইসলামি পঞ্জিকা বা হিজরি সাল গণনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেন।

হাদিসে এসেছে,তোমরা চাঁদ দেখে রোযা রাখ এবং চাঁদ দেখে রোযা ভঙ্গ কর।  (মুসলিম) তাই ইবাদত পালনের ক্ষেত্রে জ্যোতির্বিজ্ঞানের হিসেব গ্রহনযোগ্য নয়।সুতরাং একজন মুসলমানের জন্য অপরিহার্য হলো তার সকল কাজ কর্ম হিজরি সনের তারিখ অনুযায়ী সম্পন্ন করা। মহান আল্লাহ তায়ালা আমাদের সঠিক সময়ে সঠিকভাবে ইবাদত করার তাওফিক দান করুন। আমিন

মাহাবুব আলম
ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162