এই মাত্র পাওয়া : সংসদ থেকে তিন মাসের ছুটি নিয়েছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফ
মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮ | ৩, আশ্বিন, ১৪২৫
 / রাজনীতি / তফসিল ঘোষণা হলেই ঢাকা অচল
মাসুদ শায়ান, ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Tuesday, 11 September, 2018 at 9:55 PM, Count : 699
তফসিল ঘোষণা হলেই ঢাকা অচল

তফসিল ঘোষণা হলেই ঢাকা অচল

* জাতীয় ঐক্যে যাচ্ছে জাপাও
* বৃহত্তর জোট ও বিএনপির সারাদেশে প্রস্তুতি


সরকারবিরোধী আন্দোলনের জোর তৎপরতা চলছে। সারাদেশের বিএনপি ও জোটভুক্ত দলগুলোর নেতাকর্মীদের সময়মতো মাঠে নামার প্রস্তুতি নিতে কেন্দ্র থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

‘যেখানেই বাধা সেখানেই অবস্থান’- এই কর্মসূচির মাধ্যমে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি আদায়ের পরিকল্পনা নিয়েছে বিরোধী দলগুলোর ঐক্যবদ্ধ প্ল্যাটফরম বৃহত্তর ঐক্যজোট। দাবি না মেনে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার সাথে সাথেই ঢাকা অচলের কর্মসূচি গ্রহণ করবে আন্দোলনকারী বৃহত্তর ঐক্য জোট। যুক্তফ্রন্ট এবং গণফোরামের নেতৃত্বে এই কর্মসূচিতে বিএনপিও মাঠে থাকবে বলে জানা গেছে। এদিকে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিও যোগ দিচ্ছে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির স্থায়ী কমিটি এবং ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে ন্যূনতম ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে। খালেদা জিয়ার যুক্তি, তার চিকিৎসা, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ইত্যাদি ইস্যুতে বিএনপি শুধু লোক দেখানো রুটিন আন্দোলন করবে। আসল প্রস্তুতি তারা রাখছে নির্বাচন তফসিল ঘোষণার পর বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের আন্দোলনের জন্য। এই কর্মসূচির প্রস্তুতি গ্রহণের জন্যই বিএনপি ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলার রায়ের আগে বড় ধরনের কর্মসূচিতে যাবে না। ঢাকা অচলের মাধ্যমে সরকারকে দাবি মানতে বাধ্য করতে চায় বিরোধী জোট। একাধিক গোয়েন্দা সূত্র এই খবর নিশ্চিত করেছে। হঠাৎ করে বিএনপির নেতাকর্মীদের পুরনো মামলাগুলো সচল করার পেছনে এই তথ্যই মুখ্য ভূমিকা পালন করছে বলে জানা গেছে। সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে আলাপ করে জানা গেছে, চলতি মাসের মধ্যেই জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করতে পারে। রোববার জাতীয় ঐক্যে যোগ দেয়ার ব্যাপারে বিএনপি ২০ দলীয় জোটের সম্মতি আদায় করেছে। বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র বলছে, স্বল্পতম সময়ের মধ্যে বিএনপি জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সঙ্গে বৈঠকে বসতে পারে। এই বৈঠকে ন্যূনতম ইস্যুতে ঐক্যের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে বলে বিএনপি এবং ঐক্য প্রক্রিয়ার একাধিক নেতা নিশ্চিত করেছে। গণফোরামের প্রভাবশালী নেতা মোস্তফা মোহসীন মন্টু আভাস দিয়েছেন যে আগামী ২২ সেপ্টেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মহাসমাবেশে বিএনপি আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় যোগ দিতে পারে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, বিএনপি নীতিগতভাবে ঐক্য প্রক্রিয়ায় যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শুধুমাত্র এই চরম স্বৈরাচারী সরকারকে হটানোর জন্যই আমরা সর্বোচ্চ স্যাক্রিফাইস করে ঐক্য প্রক্রিয়ায় যাচ্ছি। কি ধরনের ‘স্যাক্রিফাইস’ জানতে চাওয়া হলে নজরুল ইসলাম খান বলেন, দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দল হবার পরও আমরা যৌথ নেতৃত্বে যাচ্ছি। জাতীয় ঐক্য বিএনপির নেতৃত্বে হচ্ছে না। আমরা আমাদের দলের জনপ্রিয় দাবিগুলোকে জাতীয় ঐক্যের দাবির সঙ্গে যুক্ত করছি না। ন্যূনতম, শুধুমাত্র অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সংক্রান্ত ৭ দফা দাবিতে আমরা যুক্ত হচ্ছি। যুক্তফ্রন্টের একজন প্রভাবশালী নেতা বলেছেন, নির্বাচন তফসিল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসনের ওপর আওয়ামী লীগের নিয়ন্ত্রণ শিথিল হয়ে যাবে। প্রশাসনের অনেকটা অংশই আওয়ামী লীগের অবৈধ আদেশ নির্দেশ শুনবে না। বরং তাদেরও আমাদের সঙ্গে একাত্ম হবার সম্ভাবনা রয়েছে। ঐ নেতা এটাও স্বীকার করেছেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনসহ শ্রেণী-পেশার সব মানুষকে রাস্তায় ডাকা হবে। যুক্তফ্রন্টের আরেক নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, আমরা কোনো সহিংস আন্দোলন করব না। স্বতঃস্ফূর্ত লাখ লাখ মানুষ ঢাকার রাস্তায় অবস্থান নেবে। সরকারের পদত্যাগ এবং সংসদ ভেঙে দেয়ার সিদ্ধান্ত ছাড়া আমরা রাজপথ ছাড়ব না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যে কোনো ধরনের অরাজকতা কঠোর হাতে দমন করা হবে। আন্দোলনের নামে কোনো নৈরাজ্য সহ্য করা হবে না। তিনি বলেন, নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র সম্পর্কে আমাদের কাছেও তথ্য আছে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ এসব ষড়যন্ত্রকে ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে। এদেশের মানুষ নির্বাচন চায়। সংবিধান অনুযায়ী, সঠিক সময়ে নির্বাচন হবে ইনশাআল্লাহ।

এদিকে গণফোরাম নেতা ড. কামাল হোসেন আগামী ২২ সেপ্টেম্বর জাতীয় ঐক্যের ব্যানারে মহাসমাবেশ ডেকেছেন। যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে ঐক্যের পরিপ্রেক্ষিতে ওই সমাবেশে জোটটির সব নেতাদের অংশগ্রহণ থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে। জানা গেছে, মহাসমাবেশে উপস্থিত থাকবেন যুক্তফ্রন্টের তিন দল বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব আবদুল মান্নান, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। জাতীয় ঐক্য ও যুক্তফ্রন্ট কোনোটিতেই সরাসরি যুক্ত না থাকলেও মহাসমাবেশে উপস্থিত থাকতে পারেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী। এরই মধ্যে ড. কামাল তাকে মহাসমাবেশে থাকার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

বিএনপিও সর্বশক্তি নিয়ে থাকবে জাতীয় ঐক্যের মহাসমাবেশে। জানা গেছে, দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মহাসমাবেশে উপস্থিত থেকে বিএনপির প্রতিনিধিত্ব করবেন। এছাড়া ২০ দল থেকে কর্নেল (অব.) অলি আহমদের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এলডিপি), মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিমের নেতৃত্বাধীন কল্যাণ পার্টি, ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থর দল বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) প্রতিনিধিও জাতীয় ঐক্যের মহাসমাবেশে থাকার সম্ভাবনা আছে। জাতীয় ঐক্যের মহাসমাবেশে চমক হিসেবে উপস্থিত থাকতে পারেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টির প্রতিনিধিও। জাতীয় ঐক্যের সঙ্গে জড়িত একাধিক নেতা মহাসমাবেশে জাতীয় পার্টির প্রতিনিধি উপস্থিত থাকার সম্ভাবনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নির্ভরযোগ্য সূত্র বলছে, সোমবার জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যের নেতাদের কথা হয়েছে। জি এম কাদের বলেছেন, মহাসমাবেশে প্রতিনিধি পাঠানোর বিষয়ে তিনি দলের প্রেসিডেন্ট হু. মু. এরশাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জাতীয় ঐক্যে জাতীয় পার্টির প্রতিনিধির উপস্থিতি বিশেষ গুরুত্বই বহন করবে। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মতোই জাতীয় পার্টি সর্বদা দিক পরিবর্তনশীল একটি দল। যখন যেখানে সুবিধা বেশি সেখানেই তারা- এমনও মত অনেক বিশ্লেষকের। তাই সুবিধা বেশি পেলে বর্তমান সঙ্গ ছেড়ে নতুন সঙ্গে যোগ দিতে দলটির সময় লাগবে না বলেই মনে করেন বিশ্লেষকরা। আগামী মাসের শেষেই জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে। তাই ওই সময়ের পরেই জানা যাবে জাতীয় পার্টি কোন পথে যাচ্ছে।



দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162