রবিবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৮ | ৪, অগ্রহায়ণ, ১৪২৫
 / রাজনীতি / আবারও নির্বাচন নিয়ে মধ্যস্থতায় জাতিসংঘ
মাসুদ শায়ান, ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Wednesday, 12 September, 2018 at 8:51 PM, Update: 12.09.2018 9:02:34 PM, Count : 448
আবারও নির্বাচন নিয়ে মধ্যস্থতায় জাতিসংঘ

আবারও নির্বাচন নিয়ে মধ্যস্থতায় জাতিসংঘ

* জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে বিএনপি মহাসচিব নিউইয়র্কে
* আমরা কোনো চাপের কাছে মাথা নত করব না : ওবায়দুল কাদের


বাংলাদেশে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে আবারও মধ্যস্থতায় আসছে জাতিসংঘ। ইতোমধ্যে রাজনৈতিক অঙ্গনে এ নিয়ে দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে। এ সংক্রান্ত শুনানিতে অংশ নিতে মঙ্গলবার রাতে নিউইয়র্কে রওনা হয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দিতে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা। ওই সময় জাতিসংঘের কমিটি বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন-পূর্ব রাজনৈতিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ২০১৩ সালে বাংলাদেশে এসেছিলেন জাতিসংঘের রাজনীতিবিষয়ক সহকারী মহাসচিব অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো। তিনি দফায় দফায় বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে বৈঠক করেন এবং নির্বাচনে সমঝোতার চেষ্টা করেন। বরাবরই জাতিসংঘ বিভিন্ন দেশের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক বিষয়গুলো নিয়ে কোনো সংকট সমাধানের চেষ্টা করে। তবে ২০১৪ সালে বাংলাদেশের নির্বাচনে সমঝোতায় ব্যর্থ হয় জাতিসংঘ। ওই ব্যর্থতা সত্ত্বেও জাতিসংঘ এবার বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংকটে ভূমিকা রাখতে পারবে এ আশায় সেখানে অভিযোগ উত্থাপন করেছে বিএনপি। ওই অভিযোগের শুনানিতে অংশ নিতেই জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার রাতে নিউইয়র্কে রওনা হয়েছেন। সঙ্গী হয়েছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল। আবার লন্ডন থেকে নিউইয়র্ক পৌঁছে তাদের সঙ্গে যোগ দেবেন বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সচিব হুমায়ুন কবির। জাতিসংঘের বাংলাদেশ বিষয়ে শুনানি নিয়ে অনেক কথাই শোনা যাচ্ছে, আসলে কী হবে সেখানে? নিউইয়র্ক থেকে কতটা প্রত্যাশা পূরণ হবে বিএনপির?

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, গতবার বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে সমঝোতার বিষয়টি জাতিসংঘের প্রতিনিধিরা বাংলাদেশে এসে করলেও এবার তা হচ্ছে নিউইয়র্কেই। সেখানে সরকার ও বিএনপির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে সমঝোতার মাধ্যমে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের প্রচেষ্টা চালাবে। কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে নির্বাচন নিয়ে জাতিসংঘে আগেই যে আলোচনা ছিল তারই দ্বিতীয় অধ্যায় হবে এবার। জাতিসংঘের কমিটির কাছে মির্জা ফখরুল তাদের বক্তব্য তুলে ধরবেন। জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দিতে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা। ওই সময় জাতিসংঘের কমিটি বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলবে। সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে জাতিসংঘের কমিটির সঙ্গে আলোচনায় থাকতে পারেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী, রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, অর্থনৈতিক উপদেষ্টা মসিউর রহমান ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি। জাতিসংঘের সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, কোনো দেশের রাজনৈতিক সমঝোতার প্রচেষ্টায় প্রথমেই বিভিন্ন পক্ষের বক্তব্য জানতে চাওয়া হয়। বাংলাদেশের নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক করতে তাই বিএনপির কাছে জানতে চাওয়া হতে পারে তারা সর্বনিম্ন কি শর্তে নির্বাচনে যাবে। অপরদিকে সরকারের কাছে জানতে চাইবে সর্বোচ্চ কতটুকু ছাড় তারা দিতে পারে। এরপর চলবে বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে সমঝোতা। তবে জাতিসংঘের এমন সমঝোতার প্রচেষ্টায় বাংলাদেশের অন্য সংকটগুলোর বিষয়েও তুলে ধরা হতে পারে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতিসংঘ যদি মির্জা ফখরুলকে আমন্ত্রণ করে থাকে, বিএনপি যদি দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে দেখা করেন, তাতে কোনো অসুবিধা নেই। জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে কি এজেন্ডা আছে তা জানি না। নির্বাচন নিয়েও আলোচনা হতে পারে। তারা তো জাতিসংঘে অবিরাম অভিযোগ দিয়েই যাচ্ছে। দেশের বিরুদ্ধে নালিশ করছে, সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করছে, সেসব নালিশের ব্যাপারে তাদের মতামত কী, সামনাসামনি তাদের পলিটিক্যাল উইং আলাপ করতে পারে বলে অনুমান করছি। সেটা নিয়ে আমাদের আপত্তি নেই। তিনি বলেন, আমাদের শক্তির উৎস জনগণ। নির্বাচনে জনগণ পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করবে। আমাদের সিদ্ধান্ত কোনো সংবিধানবহির্ভূত ‘প্রেসারের’ বা চাপের কাছে আমরা মাথা নত করব না। আর নির্বাচনকালীন সরকার বিএনপিকে তো আমন্ত্রণ করেনি, তারা তো সংসদে নেই।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, জাতিসংঘের পক্ষ থেকে শুনানিতে অংশ নিতে শুধু মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকেই আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তার সঙ্গী হয়েছেন বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল। বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য হলেও তাবিথ আউয়াল সরাসরি বিএনপির রাজনীতি থেকে কিছুটা দূরের বলা চলে বরং ক্রীড়া সংগঠন বলেই তিনি কিছুটা পরিচিত। জাতিসংঘে বাংলাদেশ নিয়ে শুনানিতে তাবিথের মির্জা ফখরুলের সঙ্গী হওয়ার বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। নির্ভরযোগ্য সূত্র বলছে, বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ অযাচিত হয়ে দেখা দিলে দেশের রোহিঙ্গা সংকটের বিষয়টিও তুলে ধরা হতে পারে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী নিয়ে বাংলাদেশ জর্জরিত। এই সংকট নিরসনে ন্যূনতম কোনো সাফল্য দেখাতে পারেনি জাতিসংঘ। মিয়ানমারকে সংকট নিরসনে কোনোভাবেই চাপ প্রয়োগ করতে পারছে না তারা। বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক বিষয়ে অযাচিত হস্তক্ষেপের চেয়ে রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধানে জাতিসংঘকে তৎপর হওয়ার কথা বলতে পারে সরকার।



দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162