বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৮ | ২, কার্তিক, ১৪২৫
 / স্বাস্থ্য / জ্বর জ্বর ভাব, তাহলে করণীয় কি?
স্বাস্থ্য ডেস্ক, ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Sunday, 23 September, 2018 at 6:27 PM, Count : 143
জ্বর জ্বর ভাব, তাহলে করণীয় কি?

জ্বর জ্বর ভাব, তাহলে করণীয় কি?

সাধারণত দৈনন্দিন ব্যস্ততার কারণে বাইরে তেমন বের হওয়া হয়না। যদিও মাঝে মধ্যে ছুটির অবকাশ থাকে সেটাও বাসার কাজেই কেটে যায়। সে জন্য শরীরের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লে কিংবা জ্বর জ্বর অনুভব হলেই প্যারাসিটামল খান। জ্বর আসলে তো চলবে না, অফিসের কাজ তো করতে হবে। শারীরিক অসুস্থতার প্রধান লক্ষণ হচ্ছে জ্বর। এটা শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রা সীমার ৩৬.৫–৩৭.৫ °সে (৯৭.৭–৯৯.৫°ফা) বেশি তাপমাত্রা বুঝিয়ে থাকে। শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার পরও সাধারণত ঠান্ডা অনুভূত হয়। উচ্চ নির্দিষ্ট সূচক (set point) থেকে তা বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হলে গরম অনুভূত হয়।

জ্বর বিভিন্ন কারণেই হতে পারে। কিছু কিছু তথ্য থেকে এমনটা জানা যায় যে, উচ্চ তাপমাত্রায় শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়তে থাকে। তবে জ্বরের উপকারীতা সম্পর্কে অসংখ্য বিতর্ক রয়েছে। জ্বর কমানোর জন্য অ্যান্টিপাইরেটিক ওষুধ ব্যবহার করা যেতে পারে।

অনিয়ন্ত্রিত হাইপারথার্মিয়ার সঙ্গে বেশ পার্থক্য রয়েছে জ্বরের। আর সেটা হচ্ছে হাইপারথার্মিয়া দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রক সূচকের অতিরিক্ত তাপমাত্রার ফল।

এ বিষয়ে চিকিৎসকরা বলে থাকেন যে, শরীরের তাপমাত্রা যতক্ষণ না পর্যন্ত ১০১ ডিগ্রি ফারেনহাইট ছাড়ায় ততক্ষণ পর্যন্ত ওষুধ না খাওয়া ভালো। এছাড়া ভাইরাল ফিভার নিজ থেকেই সেরে যাওয়ার কথা। এক্ষেত্রে কেবল বিশ্রাম ও পর্যাপ্ত খাবার খাওয়া প্রয়োজন। জ্বর আসলেই গা, হাত, পা ও শরীরের অন্যান্য স্থান ব্যথা করে বলে তা কমাতে কেউ কেউ অ্যাসপিরিন কিংবা এ জাতীয় ব্যথার ওষুধ (পেইনকিলার) খেয়ে থাকেন। না বুঝেই এসব জাতীয় ওষুধ খাওয়া বিপদজনক।

অধিকাংশ সময় আবহাওয়ার জন্য জ্বরের প্রবণতা বেড়ে থাকে। এছাড়াও শিশু ও বয়স্কদের মধ্যে জ্বর আসার প্রবণতা বেশি।

ডেঙ্গুর মত মারাত্মক (হেমারেজিক ফিভার) জ্বরে ব্যথানাশক পেইনকিলার খেলে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনেক ক্ষতিকর হয়। চিকিৎসকদের পরামর্শ ছাড়া এসময় ওষুধ খেলে নাক-মুখ দিয়ে বা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের সম্ভাবনা থাকে।

তিন দিন পার হওয়ার পরও যদি জ্বর না সারে তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রক্ত পরীক্ষা করে ওষুধ খান। কেননা, ভাইরাজ জনিত জ্বর (ভাইরাল ফিভার) সাধারণত দু-তিন দিনেই সেরে যায়।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162