এই মাত্র পাওয়া : দেশে সকল পর্নো সাইট ব্লক করার নির্দেশ
সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮ | ৫, অগ্রহায়ণ, ১৪২৫
 / মতামত / পয়ত্রিশোর্ধ নিবন্ধিতদের এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ প্রসঙ্গ
ভূপেন্দ্রনাথ রায়।।ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Tuesday, 23 October, 2018 at 9:25 PM, Update: 23.10.2018 9:27:37 PM, Count : 578
পয়ত্রিশোর্ধ নিবন্ধিতদের এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ প্রসঙ্গ

পয়ত্রিশোর্ধ নিবন্ধিতদের এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ প্রসঙ্গ

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যোগ্য এবং বিষয়ভিত্তিক শিক্ষক সংকটে নাজুক অবস্থার সৃষ্ট হয়েছে। দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকের শূন্যপদ সৃষ্টি হওয়ার কারণে শিক্ষকদের রুটিনের চেয়ে বেশি ক্লাস নিতে হচ্ছে। ফলে একদিকে যেমন শিক্ষকদের হাড় ভাঙা পরিশ্রম হচ্ছে অন্যদিকে মানসম্মত শিক্ষা ব্যাহত হচ্ছে। গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর মহামান্য আদালত নিবন্ধন সনদধারীদের নিয়োগের সুপারিশ করতে এনটিআরসিএ'কে নির্দেশ প্রদান করে। রায় অনুসারে প্রতিষ্ঠানটি জাতীয় সমন্বিত মেধাতালিকা প্রকাশ এবং মাসাধিক সময় নিয়ে ই-রিকুইজিশন সমাপ্ত করলেও সুপারিশ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নিতে পারেনি। এদিকে এনটিআরসি চেয়ারম্যান এ এম এম আজাহার তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেলেও রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত একে একে দুই কর্মকর্তা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব গ্রহন করেনি। ফলে প্রতিষ্ঠানটি প্রায় অভিভাবকহীনভাবে দিন পার করে যাচ্ছেন। বদলি আদেশ কার্যকর না হওয়ায় বর্তমানে ড. মো. মাহামুদ উল হককে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

গত দুই বছরে মিরপুর সিদ্ধান্ত হাইস্কুলের মতো অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকের পদ শূন্য হয়েছে। জানা যায়, খানসামা উপজেলার দুহশুহ উচ্চ বিদ্যালয়ে ইংরেজি, সামাজিক বিজ্ঞান এবং বাংলা বিষয়ে ৩টি শূন্যপদ রয়েছে। একই ভাবে উপজলার কুতুবডাংগা উচ্চ বিদ্যালয়ে বিজ্ঞান শিক্ষক পদ শুন্য রয়েছে।

বিভিন্ন পত্রপত্রিকার মাধ্যমে জানা গেছে, পয়ত্রিশোর্ধ সনদধারিরা নিয়োগের জন্য যোগ্য বিবেচিত হবে না। এ বিষয়ে ১২তম শিক্ষক নিবন্ধনধারী এবং ৩৮ বয়সী মোহাম্মদ নাজমুল হকর জানায়, আমি ১২ তম নিবন্ধন পরীক্ষায় দিনাজপুর সদর উপজেলার একমাত্র উত্তীর্ণ প্রার্থী। এনটিআরসিএ প্রথমবারের মতো দ্বাদশ নিবন্ধনের মেধা তালিকা করে কিন্তু ২০১৬ সালের নিয়োগ সুপারিশে আমি নিয়োগ সুপারিশ পাইনি। এখন এমপিও-১৮ কালো নীতিমালায় আমাদের বাদ দেওয়ার গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। এটা মেনে নেওয়া যায় না। তাই ৩৫ বা তদুর্ধ বয়সি শিক্ষক নিবন্ধিতদের নিয়ে এমপিও নীতিমালার ১১(৬) ধারা বাতিল করার জন্য আগামী ২৮ অক্টোবর রবিবার মহামান্য হাইকোর্টে রীট দাখিল করতে যাচ্ছি।

নাজমুল হককে এনটিআরসিএ'র গণবিজ্ঞপ্তিতে ৩৫ বয়সিদের রাখার কথা বললে তিনি আরো জানান, এনটিআরসি একটি ধূর্ত প্রতিষ্ঠান। এর আগে গনবিজ্ঞপ্তিটি ঠিক ছুটির সময়ে দিয়েছিল। আসন্ন বিজ্ঞপ্তিটিও যদি স্বল্প সময়ে ছুটির দিনে প্রকাশ করে এবং ৩৫ বয়সি নিবন্ধিতরা তাতে বঞ্চিত হলে করার কিছুই থাকবে না। এজন্য এনটিআরসিএ'র প্রজ্ঞাপনের অপেক্ষায় না থেকে এমপিও নীতিমালাকে চ্যালেঞ্জ করে রীট করতে যাচ্ছি।

শিক্ষামন্ত্রনালয় মহামান্য হাইকোর্টের রায়ের দোহাই দিয়ে সকল নিবন্ধিতের বয়স ৩৫ বছর নির্ধারন করার ফলে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিয়োগ ব্যবস্থায় স্থবিরতার আভাস পাওয়া যাচ্ছে। যার ফল স্বরুপ ঢাকার আমজাদ হোসেন জানান, এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ করে ইতিমধ্যে কোর্টের আরজি লেখার সমস্ত প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। যেকোন দিন তিনি রুল জারির নিমিত্তে মামলাটি কোর্টে দাখিল করবেন বলেও নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে শিক্ষক নিবন্ধিত গ্রুপের কয়েকটি পক্ষ ২৭, ২৮, ২৯ এবং ৩০ অক্টোবর মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছেন। এতে সাধারণ নিবন্ধিতরা পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন। সচেতন মহলের প্রশ্ন- এনটিআরসিএ'র গাফিলতি এবং শিক্ষামন্ত্রালয়ের গায়ের জোরে করা নীতিমালায় যদি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক সংকটাপন্ন অবস্থার সৃষ্টি হলে এর দায় কে নেবে? সরকারের শেষ সময়ে সরকারি চাকরিতে ৩৫ বছর দাবি নিয়ে সাধারন শিক্ষার্থিরা ঢাকা প্রেসক্লাব চত্বরে মানব বন্ধন করে যাচ্ছেন। অন্যদিকে সেকায়েপ পরিচালিত এসিটি শিক্ষকরা এমপিওভুক্তির জন্য শান্তপূর্ণ সমাবেশ করছে। সর্বোপরি নিবন্ধিত শিক্ষকরা তাদের অনতিবিলম্বে নিয়োগ, বয়সের নীতিমালা বাতিল সহ রীটপিটিশনারদের নিয়োগের দাবীতে একত্রিত হওয়া প্রকৃতপক্ষে দেশে অস্থিরতার আভাস দিচ্ছে। শিক্ষাব্যবস্থায় এ সংকট উত্তরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশু পদক্ষেপ নেয়া দরকার। নইলে বঙ্গবন্ধুর গড়া স্বাধীন জাতি হয়তো একদিন ব্যর্থতায় পর্যবাসিত হবে।

লেখক : ভূপেন্দ্র নাথ রায়,
অধ্যক্ষ, সাইডীরিয়্যাল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ।



দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162