সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮ | ৫, অগ্রহায়ণ, ১৪২৫
 / খেলাধুলা / ইতিহাস গড়তে পারবে তো বাংলাদেশ?
ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Monday, 5 November, 2018 at 7:20 PM, Update: 05.11.2018 7:24:00 PM, Count : 80
ইতিহাস গড়তে পারবে তো বাংলাদেশ?
৩২১ রান থেকে ২৬টা রান বাদ গেলো তৃতীয় দিনের শেষ বিকেলে। জিততে হলে স্বাগতিকদের লাগে আরও ২৯৫ রান। ওয়ানডে সিরিজে যে দল বাংলাদেশের সামনে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি, সেই দলটা টেস্ট সিরিজে এসে যেন রীতিমতো হুঙ্কার ছাড়ছে বাঘেদের সামনে।

দল বিবেচনা করলে দুই দলের জন্যই নতুন সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম। কিন্তু এই মাঠে তো অনেক খেলেছে বাংলাদেশ দলে থাকা খেলোয়াড়রা। ঘরোয়া লিগের ম্যাচ নিয়মিতই হয় এখানে। তবু কেন এত অচেনা!দুই ইনিংসেই বোলাররা তাদের কাজ ঠিকঠাক করেছে ঠিকই কিন্তু ব্যাটসম্যানরা  প্রথম ইনিংসে যা করেছেন সেটা এক কথায় এখনকার বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যায় না।

এশিয়া কাপ আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ওয়ানডের রেশ হয়তো এখনও কাটেনি। তাই বোধহয় এমনটা ঘটছে বলতেই পারেন।টসে হেরে প্রথমে বোলিং করে জিম্বাবুয়েকে ৩০০ রানের নিচে (২৮২) আটকে ফেলায় বাহবা পেতে না পেতেই চুপ হয়ে যেতে হয় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং দেখে।

এগারো জনের মধ্যে মাত্র দুইজন ব্যাটসম্যান পার করতে পেরেছিলেন ৩০ রানের কোটা। মুশফিকের ৩১ আর অভিষিক্ত আরিফুল হকের অপরাজিত ৪১ রান। এরপর মেহেদী মিরাজের ২১ রান ছাড়া বাকি আট জনের কেউই ছুঁতে পারেননি ২০ রানের কোটা।সব মিলে দ্বিতীয় দিন শেষ না হওয়ার আগেই ১৪৩ রানে অলআউট বাংলাদেশ। যার সুবাদে দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে দিতে হয় জিম্বাবুয়েকে।

 ২ ওভারে ১ রান নিয়ে দিন শেষ করলেও আজ তৃতীয় দিনের খেলায় সফরকারীরা যোগ করে আরও ১৮০ রান।প্রথম ইনিংসের ১৩৯ রানের সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংসের ১৮১ রানসহ মোট ৩২১ রানের লিড ছুড়ে দেয় জিম্বাবুয়ে।গত ১৮ বছরের টেস্ট ইতিহাসে বাংলাদেশ এত বড় লিড তাড়া করে জিততে পারেনি একবারও। যে তিন ম্যাচে চতুর্থ ইনিংসে লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছে তার একটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০০৯ সালে ২১৯ রান তাড়া করে জিতেছিল।এরপর ২০১৪ সালে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১০১ রান তাড়া করে ম্যাচ জিতে। বাংলাদেশ নিজেদের শততম টেস্ট ম্যাচেও লক্ষ্য তাড়া করে জয় পায়। গত বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেই ম্যাচে ১১৯ রান তাড়া করে।

ক্রিকেট ইতিহাসে ৩০০ রান পার করে ম্যাচ জেতার নজির আছে ৩০টি। চারশ রান তাড়া করার ঘটনা আছে চারটি। বাংলাদেশের সামনে এখন ইতিহাস গড়ার হাতছানি। হাতে আছে এখনও ১০ উইকেট। সময় আছে গোটা দুই দিন!
তৃতীয় দিন শেষ ১৪ রানে লিটন দাস আর ইমরুল কায়েস অপরাজিত আছেন ১২ রানে। 


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162