সোমবার, ডিসেম্বর ১০, ২০১৮ | ২৬, অগ্রহায়ণ, ১৪২৫
 / জেলার খবর / মিরসরাইয়ে খিরার বাম্পার ফলন; দামেও খুশি কৃষকরা
মুহাম্মদ দিদারুল আলম,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।।ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Wednesday, 5 December, 2018 at 8:31 PM, Count : 47
মিরসরাইয়ে খিরার বাম্পার ফলন; দামেও খুশি কৃষকরা

মিরসরাইয়ে খিরার বাম্পার ফলন; দামেও খুশি কৃষকরা

চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায় খিরা চাষের উপযোগী আবহাওয়া থাকায় এবার খিরা চাষিদের মুখে হাসি ফোটেছে। খিরা চাষ করে বাম্পার ফলন ও আশাতীত ভালো দাম পাচ্ছেন কৃষকরা। প্রতিমণ খিরা পাইকারি বিক্রি হচ্ছে আটশ’ থেকে এক হাজার টাকায়। যা উৎপাদন খরচের চেয়ে তিন গুণ বেশি। অল্প সময়ে স্বল্প খরচে অধিক লাভ হওয়ায় প্রতিবছরই খিরা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন নতুন নতুন কৃষক।

মিরসরাই উপজেলায় এ বছর প্রায় ৮০-৯০ হেক্টর জমিতে খিরা চাষাবাদ করা হচ্ছে বলে কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়। উপজেলার মাঠে মাঠে কৃষকরা এখন খিরার জমিতে পরিচর্যায় ব্যস্ত। পরিবারে ছোট থেকে বড় সবাই অবিরাম খিরার জমিতে নিড়ানি, সার কীটনাশক ছিটানো আর পানি দেয়া নিয়ে মহাব্যস্ত। উপজেলার হিঙ্গুলী, ইছাখালী, সাহেরখালী,খৈয়াছড়া,মঘাদিয়া ইউনিয়নে মাঠের পর মাঠ খিরার চাষাবাদ করা হয়েছে। সবুজ ডগার খিরা গাছে ভরে গেছে কৃষকের ক্ষেত। ইতোমধ্যেই উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে আগাম জাতের কিছু খিরা উঠতে শুরু করেছে। দামও আকাশছোঁয়া।


উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে চাষীদের নিয়ে আসা খিরা ক্রয় করে ব্যাপারীরা ট্রাকযোগে ঢাকা, চট্টগ্রাম,ফেনী সহ  বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে বিক্রি করে তারা লাভবান হচ্ছেন। আগাম শীতকালীন ফসল হিসেবে খিরা চাষাবাদ করে কয়েক হাজার কৃষক এখন সচ্ছল স্বাবলম্বী।

সরেজমিন উপজেলার হিঙ্গুলী ইউনিয়নে খিরার মাঠে গিয়ে কথা হলো মধ্যম আজমনগর গ্রামের খিরা চাষী আনিস সওদাগর জানান, অন্য ফসলের চেয়ে খিরা চাষে অধিক লাভ হওয়ায় এ চাষাবাদের প্রতি তার ঝোঁক। একবিঘা জমিতে খিরার চাষ করতে তার ১২ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। বাজারজাত করতে শ্রমিক খরচ আরও ৮ হাজার টাকা। সবমিলিয়ে ২০ হাজার টাকার মত খরচ হয়েছে। তবে ক্ষুদ্র বর্গাচাষিরা প্রতিবিঘা জমি ৮ থেকে ১০ হাজার টাকায় বর্গা নিয়ে আবাদ করায় তাদের খরচ আরও বেশি হয়েছে। ইতোমধ্যে ২০ দিনে তিনি প্রায় ৫৫ হাজার টাকার খিরা বিক্রি করেছেন। ক্ষেত থেকে তোলা যাবে আরও প্রায় ৩৫-৪০ হাজার টাকার খিরা।

একই গ্রামের নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক কৃষক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ফেনী নদীর কোল ঘেঁষে আমাদের এই আজমনগর খিরা চাষ করে এলাকার সাবলম্বী হয়েছেন অনেকেই। কিন্তু এই ফেনী নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনের কারণে বিলিন হচ্ছেন শতশত পরিবার সহ ফসলী জমি। তিনি দ্রুত প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ কামনা করেন।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ
প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162