আজ বুধবার, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
 / জেলার খবর / ৮ বছরেও কার্যকর হয়নি টেলিমেডিসিন স্বাস্থ্যসেবা
রাজাপুরে মোবাইল ফোনে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত
আরিফুর রহমান রনি,রাজাপুর প্রতিনিধি,ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Thursday, 7 December, 2017 at 5:12 PM, Count : 63
৮ বছরেও কার্যকর হয়নি টেলিমেডিসিন স্বাস্থ্যসেবা

৮ বছরেও কার্যকর হয়নি টেলিমেডিসিন স্বাস্থ্যসেবা

সরকার জরুরি স্বাস্থ্যসেবা সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ২০০৯ সালে দ্বিতীয়বারের মতো দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে দেশের সার্বিক উন্নয়নে ঐ বছর মে মাসে দেশের ৪১৮টি সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেলফোনে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম চালু করে। কিন্তু দীর্ঘ আট বছর পেরিয়ে গেলেও শুধু প্রচারণার অভাবে রাজাপুর উপজেলার প্রান্তিক মানুষের কাজে আসছে না এ সেবাটি।


বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সর্বশেষ তথ্যমতে, বাংলাদেশের ১৬ কোটি জনসংখ্যার মধ্যে প্রতি ৪ হাজার ২৫১ জন লোকের জন্য মাত্র একজন করে চিকিৎসক রয়েছেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ তথ্যমতে, এ সংখ্যা প্রতি ২ হাজার ৮৯৪জনে একজন। বাস্তব কিছু কারণে এখনো চিকিৎসক-সংকট রয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। কার্যকর উদ্যোগ ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে বর্তমান সরকার এ সংকট নিরসনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

এ ছাড়া নানা ধরনের ওয়েবপোর্টাল তৈরি করে গোটা স্বাস্থ্যব্যবস্থা ও সেবাদানের পদ্ধতিকে ডিজিটালাইজেশন করা হচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের অভিযাত্রায় দেশ একটি রূপান্তর প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে অগ্রসর হচ্ছে। এ প্রক্রিয়ায় সনাতন পদ্ধতি আধুনিক পদ্ধতিতে রূপান্তরিত হচ্ছে। প্রায় দুই শতাব্দী ধরে চলে আসা সরকারি সেবা প্রদানের জটিল পদ্ধতি বদলে যাচ্ছে। অঙ্গীকার অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা করে স্বাস্থ্যসহ পর্যায়ক্রমে প্রতিটি খাতকেই দুর্নীতিমুক্ত করার পদক্ষেপ নিয়েছেন। বাংলাদেশের নাগরিকদের জন্য মোবাইল ও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণের কিছু সুযোগ তৈরি করেছে সরকার।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জরুরি চিকিৎসসেবা নিশ্চিত করতে সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি করে সেলফোন দেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি সেলফোন (০১৭৩০৩২৪৪২৫) দেয়া হয়।

এ সম্পর্কে প্রচার-প্রচারণার অভাব ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দায়িত্বে অবহেলার কারণে এখনো মোবাইল ফোনে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে এলাকার মানুষ কিছুই জানে না। এ কার্যক্রমের আওতায় হাসপাতালে উপস্থিত না হয়েও সাধারণ মানুষ সরকারি নির্দিষ্ট মোবাইল ফোন নাম্বারে কল করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারবেন। এ জন্য ফোন নম্বরটি জনস্বার্থে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে ও জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রদর্শন ও প্রচার করতে সরকারিভাবে নির্দেশনা রয়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী, কর্মরত চিকিৎসক ২৪ ঘন্টা মোবাইল ফোনে রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত পরামর্শ দিবেন। প্রতিদিন এ সংক্রান্ত তথ্য হাসপাতালের একটি রেজিষ্টারে লিপিবদ্ধ করে রাখার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত বছরগুলোতে কত জন রোগী এ ধরনের সেবা গ্রহণ করেছেন তার তথ্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে পাওয়া যায়নি। নম্বরটি প্রচার ও প্রদর্শনের জন্য জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন মাধ্যমে জনগণকে জানাতে বলা হয়। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি প্রচার ও প্রদর্শনে উদ্যোগী না হওয়ায় সেলফোনে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম ফলপ্রসূ হয়নি।

স্বাস্থ্যসেবার বদলে সেলফোনটি দাপ্তরিকসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। সেলফোনে জরুরি চিকিৎসাসেবা দেয়াকে টেলিমেডিসিন সেবা বলা হয়। কেবল জরুরি প্রয়োজনেই তাৎক্ষণিকভাবে ফোনে এ সেবা ও পরামর্শ দেয়ার কথা। এ ব্যাপারে কঠোর সরকারি নির্দেশনাও রয়েছে। সরকারিভাবে দেওয়া এ মোবাইল ফোন অধিকাংশ সময় বন্ধই থাকে। মাঝেমধ্যে খোলা পেলেও ফোন রিসিভ হয় না। আর রাতের বেলায় আরও জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। ফলে ডিজিটাল এই সেবা না পেয়ে জরুরি চিকিৎসা সেবা থেকে বি ত হচ্ছেন উপজেলার সাধারন মানুষ। এ অবস্থার মধ্যে ভেস্তে যাচ্ছে সরকারের উদ্যোগটি।

বাংলাদেশের নাগরিকদের জন্য মোবাইল ও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণের কিছু সুযোগ তৈরি করেছে সরকার। সরকারি স্বাস্থ্য সেবার চেয়ে এই রাজাপুর উপজেলায় বেসরকারি পর্যায়ে স্বাস্থ্য সেবার অবকাঠামো বেশি এবং বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা ব্যয়বহুল ও সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। এ জন্যই সরকারি স্বাস্থ্য সেবা জরুরী হলেও সরকারি স্বাস্থ্য সেবায় ব্যাবহৃত ঐ মোবাইল নম্বরটিতে বৃহস্পতিবার দিনভর কল করেও তা বন্ধ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহাবুবুর রহমান বলেন, সরকারি মোবাইল ফোনটি চালু আছে। মোবাইল ফোনে চিকিৎসাসেবা নিতে কেউ ফোন না করায় সেবা গ্রহনকারীদের তালিকা করা হয়নি।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162