সোমবার, আগস্ট ২০, ২০১৮ | ৪, ভাদ্র, ১৪২৫
 / স্বাস্থ্য / ডাক্তারের ভিজিট ৪০০, তবে না দিলেও চলবে
ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Tuesday, 6 February, 2018 at 2:41 PM, Update: 06.02.2018 9:47:39 PM, Count : 532
ডা. মো. মতিয়ার রহমানের চেম্বার

ডা. মো. মতিয়ার রহমানের চেম্বার

"ভিজিট ৪০০ টাকা, কষ্ট হলে না দিলেও চলবে" কি ভাবছেন শিরোনাম দেখে? যদি এমন শিরোনাম কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চেম্বারে লেখা থাকে, তবে রোগী যেন টিট্রমেন্টের পূর্বেই অর্ধেক সুস্থ্য হয়ে যাবেন, আর রোগীর স্বজনরা যেন মুহূর্তের মধ্যেই স্বস্তির সাথে সাথে ডাক্তারকে নিজের আপন লোক ভেবে ফেলবেন। কিন্তু হ্যাঁ এমনি একজন ডাক্তার রয়েছেন, যার চেম্বারে ডেস্কের উপরে পরিস্কারভাবে কথাটা লেখা আছে। যার কথা বলতে চাচ্ছি তিনি হলেন, 
প্রফেসর ডা. মো. মতিয়ার রহমান

প্রফেসর ডা. মো. মতিয়ার রহমান

, ল্যাপারোসকপিক যন্ত্রের দ্বারা পিত্তথলি পাথর অপারেশনের অভিজ্ঞ সার্জন ডাঃ মতিয়ার রহমান। বর্তমানে তিনি ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রফেসর ও বিভাগীয় প্রধান, ইনসাফ বারাকাহ কিডনি অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, দি বারাকাহ ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান এবং কোরআন রিসার্চ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তার চেম্বারের একটি ছবি ভাইরাল হয়, যেখানে একজন সাংবাদিক নাম মিজানুর রহমান তার ফেসবুকে ছবিটি শেয়ার করেন। ছবিটিতে তিনি উল্লেখ্ করেন, 'মায়ের পিত্তথলিতে পাথর। কিডনি ডাক্তার মতিয়ার রহমানকে দেখানোর জন্য প্রায় দেড়মাস আগে সিরিয়াল দিয়ে আজ দেখাতে আসলাম। তবে ডাক্তার চেম্বারে ঢুকেই লেখাটি দেখে ভাল লাগলো। বাকিটা আল্লাহ্‌ ভরসা।'


মুহূর্তের মধ্যেই ছবিটি ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে, অনেকে মন্তব্যও করেন ছবিটিতে, 'এমন ডাক্তারের চেম্বারে ঢুকলে রোগি অর্ধেক এম্নিতেই সুস্থ হয়ে যাবে।'

সংক্ষেপে ডাঃ মতিয়ার রহমানঃ-
খুলনা জেলার ডুমুরিয়া থানার আরজি-ডুমুরিয়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন এই ডাক্তার। ১৯৬৮ ও ১৯৭০ সালে যথাক্রমে ডুমুরিয়া হাই স্কুল ও খুলনাস্থ দৌলতপুর সরকারি বিএম কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাস করেন। এরপর ১৯৭৭ সালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন।

সরকারি চাকরিতে যোগদান করে ১৯৭৯ সালে ইরাক চলে যান তিনি এবং ইরাকের জেনারেল হাসপাতালে সার্জারি বিভাগে চার বছর চাকরি করেন। এরপর তিনি উচ্চশিক্ষা অর্জনের উদ্দেশ্যে ইংল্যান্ডে যান এবং ১৯৮৬ সালে গ্লাসগো রয়েল কলেজ অব ফিজিসিয়ানস এন্ড সার্জনস থেকে সার্জারিতে এফআরসিএস ডিগ্রি অর্জন করেন। ইংল্যান্ডে রেসিডেন্ট পারমিট থাকলেও ১৯৮৭ সালে দেশে ফিরে আসেন তিনি।১৯৮৮ সালে ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল ইনিস্টিটিউট হাসপাতালে সার্জারি বিভাগের কনসালটেন্ট হিসেবে যোগদান করেন।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162