এই মাত্র পাওয়া : দেশে সকল পর্নো সাইট ব্লক করার নির্দেশ
সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮ | ৫, অগ্রহায়ণ, ১৪২৫
 / স্বাস্থ্য / চিকেন পক্স থেকে মুক্ত থাকুন
নিজস্ব প্রতিবেদক,ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Monday, 12 February, 2018 at 3:00 PM, Update: 12.02.2018 3:08:43 PM, Count : 1062
ছবি-ইন্টারনেট

ছবি-ইন্টারনেট

বসন্ত বা পক্স মূলত দুই ধরনের। ‘চিকেন পক্স’ বা জল বসন্ত এবং ‘স্মল পক্স’ বা গুটি বসন্ত। এরমধ্যে গুটি বসন্তই সবচেয়ে মারাত্বক। ‘চিকেন পক্স’ বা জলবসন্তের প্রকোপ এখন পর্যন্ত থাকলেও ‘স্মল পক্স’ বা গুটিবসন্ত এখন আর দেখা যায় না। গত শতকের আশির দশকেই পৃথিবী থেকে গুটিবসন্ত নির্মূল হয়ে গেছে বলে মনে করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এখন যে পক্সের সংক্রামণ হয় তা হচ্ছে জল বসন্ত।

লক্ষণঃ-
প্রথমদিকে রোগীর শরীরে দুর্বল ভাব, মাথাব্যথা, সর্দি-কাশি, জ্বরভাব ইত্যাদি হয়। কিছুদিনের মধ্যেই শরীরে ঘামাচির মতো দানা দেখা দেয়। পরে সেগুলো বড় হয়ে ভেতরে পানি জমতে থাকে। সেইসঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ে জ্বর ও শারীরিক দুর্বলতা। শরীরে ব্যথা ও সর্দি-কাশিও হতে পারে।

যেভাবে ছড়ায়ঃ-
জলবসন্ত রোগের আক্রমণে শরীরে পানিবাহি ছোট ছোট গোলাকার দানার সৃষ্টি হয় বলেই এর নাম জল বসন্ত। রোগীর শরীর থেকেই এই রোগের ভাইরাস সুস্থদের মধ্যে ছড়ায়। বাতাসের মাধ্যমে ছাড়াও রোগীকে স্পর্শ করা, রোগীর ব্যবহৃত জামা-কাপড়, বিছানার চাদর ও অন্যান্য ব্যবহার্য জিনিসের সংস্পর্শে আসার মাধ্যমেও এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। জল বসন্তের হাত থেকে বাঁচার প্রধান উপায় প্রতিষেধক টিকা। সাধারণত জলবসন্তে আক্রান্ত শিশু বা ব্যক্তির কোনো বিশেষ ওষুধের প্রয়োজন হয় না। কোনোরকম ওষুধ ছাড়াই সাত থেকে ১০ দিনের মধ্যেই ভালো হয়ে যায় জল বসন্ত।

চিকিৎসা ও ব্যাবস্থাপনাঃ-
এই রোগের প্রাথমিক চিকিৎসা হলো, ফুসকুড়ি না শুকানো পর্যন্ত রোগীকে আলাদা করে রাখা এবং উপসর্গ ভিত্তিক চিকিৎসা দেওয়া । ৮০% বেলায় যদি রোগির শরীরের ইমিউনিটি শক্তি ভাল থাকে তা হলে ভাইরাসজনিত রোগের কোনো চিকিৎসা প্রয়োজন হয় না। সাবধানতা অবলম্বন করলে কদিন পর এমনিতেই ভালো হয়ে যায়। তারপর ও ব্যাথা ও জ্বরের জন্য:-::প্যারাসিটামল দেয়া যায় ( শিশুদের ২০মিগ্রা/কেজী দনে ৩বার (প্রতি চামুচে থাকে ১২০মিগ্রা — বয়ষ্কদের: ১১/২ – ২ বড়ি দিনে ৩বার (প্রতি বড়িতে থাকে ৫০০ মিগ্রা)- তবে এ সময় ডিস্প্রিন বা আইব্রোফপেন জাতীয় ঔষধ সেবন সম্পুরন নিষেধ।

কুসংস্কারঃ-
চিকেন পক্স হলে খাওয়ার ওপর বিধিনিষেধ আরোপও সম্পূর্ণ অবৈজ্ঞানিক। পক্স হলে নিরামিষ খেতে হয় বলে যে প্রচলিত ধারণা রয়েছে তাও সম্পূর্ণ ভুল। বরং চিনেক পক্সে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় বলে চিকিৎসকরা বেশি করে মাছ, মাংস খাওয়ার পরামর্শ দেন। তবে অবশ্যই ঝাল-মশলা ছাড়া।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162