এই মাত্র পাওয়া : নরসিংদীর মাধবদীর আস্তানা থেকে দুই নারী ‘জঙ্গি’র আত্মসমর্পণ
বুধবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৮ | ২, কার্তিক, ১৪২৫
 / এক্সক্লুসিভ / আমি শ্বশুর বাড়ি যেতে চাইনা,আমি পড়তে চাই!
শ্বশুর বাড়ি যেতে আপত্তি স্কুল ছাত্রীর-পাশে দাড়ালেন, সাংবাদিক রবিউল
রাজবাড়ী প্রতিনিধি,ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Monday, 12 February, 2018 at 11:58 PM, Update: 13.02.2018 1:32:48 AM, Count : 664
আমি শ্বশুর বাড়ি যেতে চাইনা,আমি পড়তে চাই!

আমি শ্বশুর বাড়ি যেতে চাইনা,আমি পড়তে চাই!

বাল্য বিবাহ একটি সামাজিক অন্যায় এটা সাবাই জানে।  রয়েছে অনেক আইন তাই বলে কি থেমে আছে বাল্য বিবাহ? না থেমে নেই বাল্য বিবাহ । প্রতিনিয়তই কোথাও না কোথাও হচ্ছে বাল্য বিবাহ-একে প্রতিহত করতে গড়ে তুলতে হবে সামাজিক আন্দোলন।  এমনই একটি বাল্য বিবাহ হয়েছে রাজবাড়ীর সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের সোনাকান্দর গ্রামে ৬ মাস পূর্বে বাবা মা জোর পূর্বক ৭ম শ্রেনীতে পড়ুয়া মেয়েকে  বিয়ে দিয়ে বাড়িতে রেখেছিল।  শ্বশুর বাড়ি যেতে আপত্তি স্কুল ছাত্রীর: অসহায় কিশোরীর পাশে দাড়ালেন সাংবাদিক রবিউল। 

১২ ফেব্রুয়ারী শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে নিতে আসলে সে যেতে আপত্তি জানায়।  তাকে জোড়পূর্বক শ্বশুর বাড়িতে পাঠাতে চায় তার পরিবার।  পরে ঐ ছাত্রী তার স্কুলের প্রধান শিক্ষকে বিষয়টি গোপনে জানায়।শিক্ষক এই বিষয়টি স্থানীয় এক সাংবাদিক এসএম রেজাউল করিমকে জানান।  পরে তিনি পরে রাজবাড়ী সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি খন্দকার রবিউল কে অবগত করেন।  পরে সাংবাদিক রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটির পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলেন। পরে তারা বিভিন্ন তালবাহানা করেন।  একর পর্যায় বিয়ের বিষয় স্বিকার করেন। 

৭ম শ্রেণীর ছাত্রী জানায় তাকে ৬ মাস পূর্বে জোর করে তার পরিবারের লোকজন দাদশী ইউনিয়নের আর্শাদ সরদারের ছেলে দর্জী কারিগরের সাথে বিয়ে দেয়।  আজ তাকে ছেলের বাড়িতে নিয়ে যেতে লোকজন আসে।সে শ্বশুর বাড়ি যেতে চায়না সে পড়তে চায় বলেই কেঁদে ফেলে ছোট্র এই কিশোরী।

সাংবাদিক রবিউল ইসলাম ডেসটিনি অনলাইনকে জানান , আমার ফেসবুকে সাংবাদিক এসএম রেজাউল করিম একটি ম্যাসেজ দেন সোনাকান্দর এলাকায় একটি ছোট্র কিশোরীর কে জোর করে বিয়ে দিয়ে শ্বশুর বাড়ী পাঠাতে চাচ্ছে তার পরিবারের লোকজন।  এমন খবর পাওয়ার পরে আমি ম্যাসেজটি এনডিসি মোঃ তোহিদুল ইসলামকে ফরয়ার্ড করি।  পরে নিজেই ছুটে চলে যাই এই ছোট্র কিশোরীকে বাচাতে।  পরে স্থানীয় মেম্বার আব্দুর রশিদ (মনি)কে ডেকে এনে বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘ ২ঘন্টা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত হয় মেয়ের ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত ছেলে মেয়ের বাড়িতে আসতে পারবে না। সে ঠিকমত পড়া শোনা করবে তাকে তার পরিবারের পক্ষ থেকেও কোন চাপ সৃষ্টি করতে পারবে না।এই মর্মে ছেলে পক্ষ ও মেয়ের পক্ষ একটি লিখিত মুচলেকা দেন।  পরে পুরো বিষয়টি এনডিসি মোঃ তৌহিদুল ইসলামের সাথে ফোনে জানানো হয়।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162