বুধবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৮ | ৩, আশ্বিন, ১৪২৫
 / এক্সক্লুসিভ / বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ
ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Wednesday, 2 May, 2018 at 9:23 PM, Update: 03.05.2018 4:02:07 PM, Count : 1951
বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

আগামী ১১ এবং ১২ই মে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিল। আর অন্যদিকে কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে লবিং এবং মাঠ গোছাতে ব্যস্ত পদ প্রত্যাশীরা।জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের আসন্ন কাউন্সিলকে ঘিরে আলোচনার মধ্যমণি এখন ছাত্রবান্ধব নেতা শরীফুল হাসান শুভ। তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত সবার কাছে নিরংকুশ গ্রহনযোগ্যতা অর্জন করেছেন বৃহত্তর ময়মনসিংহের জামালপুরের ২৮ বছর বয়সী এই ছাত্র নেতা।

শরীফুল হাসান শুভ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এল এল বি এবং এল এল এম সম্পন্ন করে বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের Center for genocide studies এ অধ্যয়নরত আছেন।

শুভ ছাত্র রাজনীতিতে পা রাখেন মূলত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্যার এফ রহমান হল থেকে। তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির পাশাপাশি আইনের শিক্ষার্থীদের বঙ্গবন্ধুর চেতনায় উদ্বুদ্ধ  করণে ২০১২ সাল থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী আইন ছাত্র পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। নিজের কর্ম, ত্যাগ এবং ভালোবাসায় নিজেকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। সফল করেছেন ব্যতিক্রমধর্মী অনেক কর্মসূচী। দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রদের জন্য তার মানবহিতোষী কর্মসূচী প্রশংসা কুড়িয়েছে সর্ব মহলে।
বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ


কিছু কিছু নেতার বিরুদ্ধে যখন একের পর এক চাঁদাবাজি, ধর্ষণ এবং খুনের অভিযোগের পাহাড় জমা হচ্ছে তার বিপরীতে শুভর ছাত্রবান্ধব কর্মকাণ্ড ছাত্রলীগের ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি আনয়নে অনেকটাই ভূমিকা রেখেছে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি যে কোন কটুক্তি আর অসম্মান প্রদর্শনের প্রতিবাদে তিনি ছিলেন সর্বদা সোচ্চার। শুধু দলের জন্য নয় সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে রাজপথে দাঁড়িয়েছেন অনেকবার। কর্মীদের সব সময় খোঁজ খবর নেয়া, তাদের যে কোন দুঃসময়ে ছুটে যাওয়া, পাশো দাড়ানো, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়া এসব গুণাবলী তাকে নিয়ে গেছ। উচ্চতার এক শিখরে।

সবাই মনে করেন শরীফুল হাসান শুভ ছাত্রলীগের সভাপতি হলে ছাত্রলীগে বড় ধরণের ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে এবং বিশ্ব মহলে প্রশংসিত হবে। শরীফুল হাসান শুভ তিনি আইন অনুষদের সভাপতি থাকাকালীন ব্যতিক্রমভাবে বঙ্গবন্ধু যে আইন বিভাগের ছাত্র ছিলেন তার কিছু অনুলিপি সংগ্রহ করার কাজ হাতে নেন এবং তা ও সম্পন্ন ও করেন যা এর আগে আজ পর্যন্ত কোন নেতা করে দেখান নি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও স্মৃতির নির্দশনসরুপ তিনি দীর্ঘদিন ধরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ল কমপ্লেক্স নির্মান করার দাবি জানিয়ে আসছেন এবং এ লক্ষ্যে তা বাস্তবায়নের জন্য ও কাজ ও করে যাচ্ছেন।


বঙ্গবন্ধু কাংখিত আইনের শাসন বাস্তবায়নে অনুপ্রাণিত করার লক্ষ্যে আইন অনুষদ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জুড়িশিয়ারিতে সুপারিশপ্রাপ্ত দের নিয়ে একটি সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা করেন যেখানে দেশের সেরা আইন ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও আদর্শ সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে তিনি নবীন শিক্ষার্থীদের মাঝে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তিনি বঙ্গবন্ধু অসমাপ্ত আত্মজীবনী বিতরণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর সোনালী চক্রবর্তী ব্যানার্জী সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের মাঝে বঙ্গবন্ধু “অসমাপ্ত আত্মজীবনী ” উপহার দেন।
বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ


বঙ্গবন্ধুর আদর্শে তরুণ সমাজকে উদ্ধুদ্ধ করতে তিনি অভিনব পন্থায় বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর আলোচনা সভা এবং অসমাপ্ত আত্মজীবনীর উপর কুইজ প্রতিযোগীতার আয়োজন করেন। বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মবার্ষিকীতে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজনের পাশাপাশি এতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ ও করে অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন।বঙ্গবন্ধু ল কমপ্লেক্স সহ তের দফা দাবিকে দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে কয়েকবার সাংবাদিক সম্মেলনসহ কর্তৃপক্ষ বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন এই নেতা।


বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে আন্তর্জাতিকভাবে ছড়িয়ে দিতে তার প্রচেষ্টা হিসেবে তিনি ভারতের মন্ত্রী পর্যায়ের বিভিন্ন কংগ্রেস নেতার সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করেন। সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনে বিভিন্ন সময় সংঘর্ষের শিকার হয়েছিলেন শুভ।

এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম মৃত্যবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করেন যেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একান্ত আস্থাভাজন ব্যক্তি মাননীয় স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীও সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস এর মহাসচিব শ্রী ড. পার্থ চট্টোপাধ্যায়, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য রাজ্য সরকারের সাবো পরিবহনমন্ত্রী শ্রী মদন মিত্র, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য ছাত্র পরিষদ, জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতি শ্রী আশুতোষ চট্টোপাধ্যায় সহ বিভিন্ন হাই প্রোফাইল ব্যক্তিবর্গ। যেখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মানে দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয় এ ধরণের আয়োজন ছাত্রলীগের ইতিহাসে বিরল।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উচ্চশিক্ষা এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ড. পার্থ চট্টপাধ্যায় শরীফুল হাসান শুভ বরাবর একটি শুভেচ্ছা বার্তা পাঠান যেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে তার প্রতি ঐতিহাসিক হত্যাকান্ডে গভীর সমবেদনা জানানো হয়। এছাড়া শহীদ মিনারের পরিচ্ছন্নতা ও পবিত্রতা রক্ষায় সব সময় কাজ করে গেছেন শরীফুল এর জন্য কর্তৃপক্ষকে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে সর্বদা অনুরোধ করেন এবং নিজ কর্মীদের এ ব্যাপারে সর্বদা সক্রিয় রাখেন তিনি। শরীফুল হাসান শুভর আগামী দিনে তার তের দফা দাবি বাস্তবায়ন করেই ছাড়বেন বলে নিজের দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন করে ছাত্রলীগকে এগিয়ে নিতে চাই: শুভ


মাদকমুক্ত ছাত্র সমাজ গঠনে ইতিমধ্যেই সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি, অভিযান চালিয়ে অনেক মাদকাসক্ত শিক্ষার্থীকে পুলিশের হাতে তুলে দেন তিনি। তিনি আগামী দিনে বঙ্গবন্ধু ল কমপ্লেক্সের নির্মানের জন্য কর্তৃপক্ষকে বাধ্য করার মাধ্যমে এই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করা সহ বঙ্গবন্ধু মেধাবৃত্তি চালু, বঙ্গবন্ধু ল চেয়ার নির্মান, বঙ্গবন্ধুর একটি ম্যূরাল স্থাপনের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাবার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। নববর্ষ উদযাপনো সবাই যখন আড্ডাবাজিতে ব্যস্ত তখনি শুভ পথচারীদের জন্য সুপেয় পানীর ব্যবস্থা করে ছাত্রলীগের গৌরবময় ইতিহাসের অংশীদার হন।

আগামী দিনে ছাত্রলীগে কেমন নেতৃত্ব দেখতে চান, এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন

আগামীর ছাত্রনেতৃত্বে আসুক এমন ব্যক্তি যার মধ্যে দলের জন্য ত্যাগী,সৎ,নিষ্ঠাবান এবংসাধারন ছাত্র-ছাত্রীদের অধিকার আদায়ের কথা বলবে,সর্বদায় কর্মীদের খোজ খবর নিবে, সমস্যা সমাধান করবে,পারিবারিক ভাবে সচ্ছল হওয়া, মাধকবিরোধী হতে হবে, ছাত্রদের কল্যাণে কাজ করবে, চাদাবাজি, টেন্ডারবাজি না করা, মানবসেবা,জনকল্যানে সর্বদায় নিয়োজিত থাকা,দেশ ও দেশের বাইরের ছাত্রসমাজের সাথে সুসমর্পক সৃস্টি করা,মুক্তি যুদ্ধের চেতনা ধারন করা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ কে ধারন করে যে কোনো বিপদ মোকাবেলায় সর্বদা প্রস্তুত থাকা,নিজের স্বার্থ কে বিসর্জন দিয়ে রাজপথে নামে অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে থাকা, বিরুপ পরিস্থিতি মোকাবেলা করার মতো অভিজ্ঞতা থাকা, গতানুগতিক বক্তব্যের বাইরে গিয়ে গঠনমূলক এবং তথ্যবহুল বক্তব্য দিতে সক্ষম এমন কাউকে অগ্রাধিকার দেয়া উচিত যা একবিংশ শতাব্দীর ছাত্ররাজনীতির ট্রাম্পকার্ড হিসেবে কাজ করবে।

একইসাথে এলাকাপ্রীতির মতো নিন্দনীয় নীতি থেকে বের হতে হবে অর্থাৎ কর্মীর যোগ্যতা যাচাই করে পদ দেওয়া, প্ররিশ্রমী সৎ মেধাবী কর্মী দের সঠিক মৃল্যয়ান করা এবং জন নেত্রীর শেখ হাসিনার হাত কে শক্তিশালী ও ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে সর্বদায় ছাত্র সমাজ কে সাথে রাখতে হবে।

দেশের উন্নয়নে ছাত্র নেতাদের ছাত্র সমাজের পাশাপাশি কি কি ভূমিকা রাখা আপনি উচিত বলে মনে করেন, এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,

একজন ছাত্র নেতা অবশ্যই দেশ এবং জনস্বার্থে সর্বদা কাজ করে যাবেন, জনসেবামূলক কাজে নিজে অংশগ্রহণ করবে এবং তার কর্মীদের উৎসাহিত করবে, দেশের সংকটকালীন মুহুর্তে এগিয়ে আসবে, ছাত্র সমাজের সেবায় নিজেকে সর্বদা নিয়োজিত রাখবে, দেশের শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকারকে সহযোগীতার পাশাপাশি পরামর্শ দিয়ে সহযোগীতা করবে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অরাজকতা এবং অনিয়ম নিরসনে তাকে এগিয়ে আসতে হবে, গবেষণা সহ শিক্ষা খাতে বাজেট বরাদ্দের জন্য সরকারকে সুপারিশ করবে, ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত শিক্ষার্থী এবং সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে সমন্বয় করবে এবং পারস্পরিক সম্পর্ক বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে, সরকার এবং জনগণের মাঝে মেলবন্ধন তৈরীতে কাজ করবে, সর্বদা অরাজকতা, অন্যায় ও সহিংসতার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে মোকাবিলা করবে, সামাজিক অবক্ষয় রোধে জনগণকে সচেতন করবে, নিরক্ষর জনগোষ্ঠীকে নিরক্ষরতার অভিশাপ থেকে মুক্তির জন্য কাজ করবে, অনগ্রসর উপজাতিসহ অন্যান্য জাতির জনগণকে মূলস্রোতে নিয়ে আসার জন্য, বেকার সমস্যা নিরসনে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণে, জাতির ক্রান্তিলগ্নে ছাত্র সমাজকে এগিয়ে আসার জন্য উদ্ধুদ্ধ করবে যাতে ছাত্র সমাজের অতীত ইতিহাস অক্ষুণ্ণ থাকে।


এর পাশাপাশি একজন ছাত্রনেতাকে ইতিহাস সম্পর্কে জানতে হবে, সাধারণ ছাত্রদের কাছে আকর্ষণীয় চরিত্রের অধিকারী হতে হবে, পোশাক পরিচ্ছদে হতে হবে সাধারণ। মিড়িয়ায় অবশ্যই যৌক্তিক এবং গুছিয়ে কথা বলার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে, সাবেকদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের সংস্কৃতি ফিরিয়ে আনতে হবে, সর্বোপরি বঙ্গবন্ধু কণ্যা শেখ হাসিনার নির্দেশমত কাজ করে যেতে হবে।

আগামী দিনে তার কর্ম কিরুপ হবে সে প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,

জাতিরপিতার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, আত্মত্যাগ ও জনগণের প্রতি অসাধারণ মমত্ববোধের কারণেই তিনি হয়ে ওঠেন বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা ‘বঙ্গবন্ধু’। বাঙালির অধিকারের প্রশ্নে অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কখনো আপস করেননি। তিনি ছিলেন আজীবন সংগ্রামী জীবনের অভিযাত্রী। বাংলা, বাঙালি ও বাংলাদেশে তিনি আজও ছড়িয়ে চলেছেন নাক্ষত্রিক প্রভা।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা খুবই গর্বিত যে জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর আইন বিভাগের ছাত্র ছিলেন।ছাত্র থাকাকালীন সময়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। তাই অাইনের শাসন প্রতিষ্ঠা,ন্যায় বিচার ও মানুষের অধিকার নিয়ে কাজ করেছন। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ছাত্রদের অধিকার এবং সোনার বাংলা বিনির্মাণে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সেই সাথে বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করেন ও সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কাজ করে যাচ্ছেন।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162