বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৯, ২০১৮ | ৩, শ্রাবণ, ১৪২৫
 / প্রথম পাতা / চাওয়া-পাওয়ার হিসাব মিলাচ্ছে বিএনপি
কেসিসি নির্বাচন
ডেসটিনি রিপোর্ট
Published : Thursday, 17 May, 2018 at 9:37 PM, Count : 90
চাওয়া-পাওয়ার হিসাব মিলাচ্ছে বিএনপি

চাওয়া-পাওয়ার হিসাব মিলাচ্ছে বিএনপি

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে হেরে গেছে বিএনপি। তারপরও দলটি বলছে, তারা রাজনৈতিকভাবে বিজয়ী হয়েছে। বিএনপি নেতারা বলছেন, খুলনা সিটি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে প্রার্থী পরাজিত হলেও রাজনৈতিকভাবে বিজয়ী হয়েছেন তারা। এক্ষেত্রে একাদশ জাতীয় নির্বাচনে  সরকার কোন প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে চায়, সে বিষয়টিও উঠে এসেছে।
বিএনপি নেতারা বলছেন, নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হেরে যাওয়া, নির্বাচন কমিশনে একাধিকবার আনুষ্ঠানিক অভিযোগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অবস্থানসহ খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে নানা দৃষ্টিকোণ থেকে মূল্যায়ন করছে। এ জন্য অচিরেই বিএনপির স্থায়ী কমিটিসহ সিনিয়র নেতারা বৈঠকে বসবেন।
১৫ মে অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে পরাজিত করেন। এই পরাজয়ের পর বিএনপির তরফে বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশনের অযোগ্যতা, ব্যর্থতা ও পুলিশি হামলার কারণে কেসিসি নির্বাচনে বিএনপির নেতাকর্মীরা দাঁড়াতে পারেননি। সাধারণ ভোটাররাও ভোট দিতে পারেননি। এ কমিশন পুরোপুরি অযোগ্য, তাই ইসির পুনর্গঠন করতে হবে। নির্বাচন-পরবর্তী রাজনৈতিক কর্মকৌশল সম্পর্কে বিএনপির নেতারা বলেন, খুলনায় দলের প্রার্থী হারলেও রাজনৈতিকভাবে বিএনপি লাভবান হয়েছে। নির্বাচনের আগে সম্ভাব্য ত্রুটি-বিচ্যুতি, সমস্যা নিরূপণ করতে একাধিকবার বিএনপির প্রতিনিধি দল আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছে।
এসব অভিযোগ অনেকটাই আমলে নেয়নি ইসি। যদিও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের তরফে রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়ে অভিযোগ দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা গ্রহণ করে ইসি। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একাধিকবার অভিযোগ করেছেন, তিনি নিজেও বিভিন্ন বিষয়ে সিইসিকে ফোন করে জানিয়েছেন। এরপরও সিইসি কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।
বিএনপি নেতারা মনে করেন, খুলনা নির্বাচনে পুলিশের সামনেই জালভোট প্রদান, মানুষের অংশগ্রহণ না থাকার কারণে রাজনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জিত হয়েছে। বিশেষ করে বর্তমান ইসির অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু না হওয়া, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু না হওয়ার শঙ্কা আবারো প্রমাণিত হয়েছে। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আসলে খুলনায় বিএনপি পরাজিত হয়নি। পরাজিত হয়েছে স্বাধীনতার, ভোটাধিকারের, নৈতিকতার, শিষ্টাচারের। বিএনপি আপ্রাণ চেষ্টা করেছে নৈতিকতা ধরে রাখার। কিন্তু কোনোভাবেই স্বৈরতন্ত্রের কাছে রাখা সম্ভব হয়নি। তিনি অভিযোগ করেন, দেশে স্বৈরতন্ত্র চূড়ান্ত রূপ নিয়েছে। নগ্নভাবে নির্বাচনটাকে ব্যবহার করবে, তা বুঝতে পারি নাই। একাত্তরের যুদ্ধটাকে কী মর্মান্তিকভাবে লজ্জায় ফেলে দিলাম। যে অধিকার পেয়েছিলাম, তা আওয়ামী লীগ নষ্ট করে দিল।’
তিনি বলেন, এই নির্বাচন থেকে মেসেজ হচ্ছে, সরকার ক্রমান্বয়ে সমর্থন হারাচ্ছে। এরপরও তারা গায়ের জোর ব্যবহার করছে। গু-ামিতন্ত্রের বহিঃপ্রকাশ করছে। নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনগণের সঙ্গে তামাশা করছে। বিএনপি নির্বাচনে না গেলে, এত সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা যেত না, সরকার ভোটে কত লুটপাট করে। অংশগ্রহণ করেছি বলেই সারাবিশ্বও বুঝতে পেরেছে, মূলত আওয়ামী লীগ পরাজিত হয়েছে। খুলনা নির্বাচনের পর স্থানীয়ভাবেও বিএনপির নেতাদের মূল্যায়ন হচ্ছে, নির্বাচনের আগে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, নগরীর নদীর ওপার থেকে বহিরাগত, ছাত্রলীগ-যুবলীগের যৌথ উদ্যোগে ভোট কারচুপি হয়েছে। এর জন্য পুলিশ ও ইসিকে দায়ী করছেন তারা।
খুলনা সিটি করপোরেশনের বিদায়ী মেয়র মনিরুজ্জামান মনি বলেন, ভোট কাটার মহোৎসব হয়েছে। এই ভোটের কোনো ইতিবাচক প্রভাব নেই। নেতিবাচক প্রভাব আছে। মানুষ হতাশ। পুলিশের সহযোগিতায়, ইসির সহযোগিতায় ভোট কেটে নিয়ে গেল।
বিএনপির দায়িত্বশীল নেতারা বলছেন, খুলনা নির্বাচনের সব খুঁটিনাটি নিয়ে মূল্যায়ন করবে বিএনপি। অচিরেই এই মূল্যায়নের জন্য বৈঠকে বসবেন স্থায়ী কমিটিসহ সিনিয়র নেতারা। বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমরা খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে মূল্যায়ন করব। আমার ব্যক্তিগত মূল্যায়ন হচ্ছে, সরকারের প্রশাসন, সরকার দলীয়রা এক  হয়ে গায়ের জোরে ভোট জিতে নিয়েছে। এটা তাদের নগ্ন বহিঃপ্রকাশ। অবশ্যই আগামী নির্বাচন কেমন হবে, এর একটা বার্তা আমরা পেলাম।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162