মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৮ | ৮, কার্তিক, ১৪২৫
 / ফিচার / শোভা বর্ধনে ঝুলছে জাতীয় ফল কাঁঠাল
কালাম সরদার, কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি, ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Friday, 8 June, 2018 at 5:09 PM, Count : 373
শোভা বর্ধনে ঝুলছে জাতীয় ফল কাঁঠাল

শোভা বর্ধনে ঝুলছে জাতীয় ফল কাঁঠাল

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলের বসতবাড়ির আঙ্গিনাতে সম্প্রতি শোভা বর্ধনে ঝুলছে জাতীয় ফল কাঁঠাল। তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবারে আশানুরুপ ফলন নয় বলে জানিয়েছন গৃহস্থলীরা।

উপজেলার বিশেষ করে দেয়াড়া, কুশোডাঙ্গা, কেরালকাতা, যুগিখালী, লাঙ্গলঝাড়া, কয়লা, সোনাবাড়ীয়া, চন্দনপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক হারে কাঠাল গাছ লক্ষণীয়। ওই সব এলাকার শুধু বসতবাড়িতে নয়, ফসলী জামির দু’ধারে সারি বদ্ধভাবে কাঠাল গাছ রোপন করেছেন কৃষকরা। উপজেলার দেয়াড়া এলাকার কৃষক মোস্তফা কামালসহ অন্যান্যরা জানান, কাঁঠাল গুলো পাকতে আরও প্রায় এমাস সময় লেগে যাবে। বিভিন্ন এলাকায় সকল বাড়ির আঙ্গিনায় কমপক্ষে ১৫-২০টি  করে কাঁঠালগাছ রয়েছে বলে তিনি মনে করেন। অনেক এলাকা থেকে কাঁঠাল বিক্রি এবং পরিবারে খাওয়ার জন্য কমতে শুরু করেছে।

এদিকে উপজেলার দেয়াড়া এলাকায় কাঁঠাল গাছ কম হলেও অন্য এলাকায় প্রতিটি বাড়িই যেন এক একটি কাঁঠাল বাগান বলে মন্তব্য করেন খুচরা কাঁঠাল ব্যবসায়ী জৈনেক মোঃ ইমান আলী। যার খুচরা ও পাইকারি বাজার মূল্য গড় ৩৫-৯৫ টাকা, সবচেয়ে বড় কাঁঠাল ১১০-১২০ টাকা হারে বিক্রি হচ্ছে পাইকারি বড় মার্কেট গুলোতে বলে তিনি জানান। গাছের শিকর থেকে শুরু করে মগডাল পর্যন্ত থোকা থোকা ধরে থাকা কাঁঠালগুলোই বলে দেয় চাষের জন্য কতটা উপযোগী সেসমস্ত এলাকার মাটি।

জানা যায়, কৃষি বিভাগের সহায়তা ও মতামত ছাড়াই মানুষ জন বংশ পরমপরায় কাঁঠাল চাষ করে আসছে যুগ যুগ ধরে। বৈশাখ থেকে ভাদ্রমাসের কিছু সময়সহ পাঁচ মাস পর্যন্ত কাঁঠালের ভরা মৌসুম বলেও জানান কৃষকেরা ।

আবার কিছু সংখ্যাক পরিবার কাঁঠাল বেচা-কেনা করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। তাছাড়া আষাঢ়-শ্রাবণ কাঁঠাল পাকার উৎকৃষ্ট সময়। তবে এবার জ্যৈষ্ঠ মাসেও পর্যাপ্ত কাঁঠাল বাজারে বেচা কেনা হচ্ছে। কাঁঠাল রসালো ও সুস্বাদু একটি ফল। এছাড়া এলোপাথাড়ি গাছ লাগানোর ফলে কোন অঞ্চলে পরিকল্পিতভাবে কাঁঠালের তেমন কোনো বাগান করা হয় না বলে জানান অনেকেই। কোনো ধরণের সার-বিষ প্রয়াগ এবং যত্ন ছাড়াই এ গাছ বেড়ে ওঠে।

কাঁঠাল বাংলাদেশের জাতীয় ফল যা প্রোটিন ও ভিটামিনসমৃদ্ধ। গ্রাম ও শহর উভয় অঞ্চলের লোকের খুবই পছন্দের ফল। বই পুস্তকের বরাতে ও স্বাস্থ্যবিজ্ঞানীদের মতে, প্রতি ১০০ গ্রাম পাকা কাঁঠালে রয়েছে ১.৮ গ্রাম প্রোটিন, ০.৩০ গ্রাম ফ্যাট, ২.৬১ গ্রাম ক্যালসিয়াম, ১.০৭ গ্রাম লৌহ, ০.১১ ভিটামিন বি-১, ০.১৫ গ্রাম ভিটামিন বি-২ এবং ২১.০৪ গ্রাম ভিটামিন ই।

সুতরাং প্রতিটি মানুষের সুস্থ-সবল স্বাস্থ্যের জন্য ও ভিটামিনের অভাব পূরণে সুস্বাদু কাঁঠাল খাওয়ার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। যদিও পুষ্টি ও ভিটামিনের দিক থেকে হজমে একটু সমস্যা হয় বলে সকল শ্রেণীর ভোক্তারা জানান। তারা আরও বলেন, কাঁঠালের একটি বড় গুণ হলো এর কিছুই বাদ যায় না। কাঁঠালের রস থেকে প্রচুর ভিটামিন, ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়। কাঁঠালের বিচি এবং কাঁচা কাঁঠালের মোচা দিয়ে তরকারি রান্না করে খাওয়া যায়। কাঁঠালের খোলস ও পাতা গরু-ছাগলের প্রিয় খাবার। এ ছাড়া কাঁঠালের কাঠ থেকে আসবাবপত্র তৈরি করা ভালো হয়। ‘কাঠালের বাম্পার ফলনের পরও যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না হওয়ায় চাষীরা কাঁঠালের ভালো দাম পাচ্ছেন না বলে জানান। কাঁঠালসহ মৌসুমী ফল সংরক্ষণ এবং সুষ্ঠু বাজারজাতকরণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী এ খাতে সংশ্লিষ্টদের কাছে এমনটাই প্রত্যাশা করেন  কাঁঠাল উৎপাদনকারীরা।

কলারোয়া উপজেলার কৃষি অফিসার মোঃ মহসিন আলম জাতীয় ফল কাঁঠালের উল্লেখ সকল গুনাগুনের কথায় সহমত পোষণ করেন। এবং কলারোয়া উপজেলায় ৮৫ হেক্টর জমিতে কাঁঠালের চাষাবাদ হয়েছে বলে তিনি জানান। তাছাড়া কাঁঠালের তেমন কোন রোগ বালাই হয় না তবুও আগামী বছর থেকে কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে বিশেষ সুবিধা ও যথাযথ পরামর্শ দেওয়া হবে বলে এই প্রতিবেদককে জানান কৃষি অফিসার মোঃ মহসিন আলম।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162