সোমবার, আগস্ট ২০, ২০১৮ | ৫, ভাদ্র, ১৪২৫
 / জেলার খবর / হতদরিদ্রের চাল নিয়ে চালবাজি!
রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা, ডেসটিনি অনলাইন :
Published : Wednesday, 13 June, 2018 at 5:48 PM, Count : 408
হতদরিদ্রের চাল নিয়ে চালবাজি!

হতদরিদ্রের চাল নিয়ে চালবাজি!

নওগাঁর রাণীনগরে আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে গরীব অসহায় দুঃস্থ মানুষের খাদ্য সহায়তা প্রকল্প (ভিজিএফ) এর আওতায় বরাদ্দকৃত চাল বিতরণ নিয়ে নানান ধরণের চালবাজির অভিযোগ উঠেছে। বরাদ্দকৃত চালের মধ্যে প্রায় ৪০ বস্তা চাল সুবিধা ভোগীদের মাঝে বিতরণ না করে চেয়ারম্যান ও ট্যাক অফিসারের যোগসাজসে ইউনিয়ন পরিষদ ঘরে গোপনে রেখে দেয়। বুধবার দুপুরে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই চাল গুলো দেখে প্রায় ৩ ঘন্টা ধরে চেয়ারম্যানের সাথে দেন-দরবার করে। নানান নাটকীয়তার এক পর্যায়ে নির্বাহী অফিসার সোনিয়া বিনতে তাবিব এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইউনিয়ন পরিষদের হল রুমে চাল নিয়ে বসেই আসেন তিনি। এছাড়াও গত সোমবার (১১ জুন) সদর ইউনিয়ন পরিষদের ৪ বস্তা চাল কালো বাজারে বিক্রয়ের সময় চাল গুলো উপজেলা নির্বাহী অফিসার আটক করে। আটককৃত চাল উপজেলার বিভিন্ন মাদ্রাসায় দান করা হয়েছে বলে সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান পিন্টু জানান। ১নং খট্টেশ্বর রাণীনগর ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে গরীব, অসহায়, দুঃস্থ সুবিধা ভোগীদের তালিকা তৈরিতেও রয়েছে স্বজনপ্রীতি-দলপ্রীতি সহ নানা অভিযোগ।

জানা গেছে, উপজেলার একডালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলাম আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে দুঃস্থ খাদ্য সহায়তা প্রকল্প (ভিজিএফ)’র প্রায় ৪ শ’ ৫০ বস্তা ৩০ কেজি হিসেবে চাল গত সোমবার (১১ জুন) রাণীনগর সরকারি খাদ্য গুদাম থেকে সুবিধা ভোগীদের মাঝে বিতরণের জন্য উত্তোলন করে ওই ইউনিয়ন পরিষদের কার্যলয়ে গুদাম জাত করে। এরপর ১২ জুন মঙ্গলবার যথারীতি সুবিধা ভোগিদের মাঝে বিতরণ শুরু করা হয়। বিতরণের এক পর্যায়ে ট্যাক অফিসার অমল কুমার ও চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলামের যোগসাজসে ৪০ বস্তা চাল গোপনে রেখে দেয়। সেই চাল বুধবার সকালের দিকে কালো বাজারে বিক্রয়ের গুনঞ্জনের কথা শুনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া বিনতে তাবিব ঘটনাস্থলে পৌঁছে চাল গুলো দেখতে পেয়ে সবগুলো চাল তার হেফাজতে নেয়। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মূল রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে বলে স্থানীয়রা জানান।

এদিকে নির্বাহী অফিসার ওই চাল গুলো বিতরণের জন্য বুধবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলাম ও তদারকি কর্মকর্তা অমল কে সময় বেঁধে দেয়। এরমধ্যে তালিকাভূক্ত সুবিধা ভোগীদের মাঝে বিতরণে ব্যর্থ হলে সমদয় চাল উদ্ধার করে বিভিন্ন মাদ্রাসায় বিতরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়াও ১নং খট্টেশ্বর রাণীনগর ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে ভিজিএফ’র চাল বিতরণের লক্ষ্যে গরীব, অসহায়, দুঃস্থদের তালিকা করা হয়। সুবিধাভোগীদের তালিকা তৈরিতে স্বজনপ্রীতি, দলপ্রীতিসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। সদর ইউনিয়ন পরিষদে গত সোমবার (১১ জুন) চাল বিতরণের সময় ৪ বস্তা চাল কালো বাজারে বিক্রয়ের সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আটক করে। আটককৃত চাল উপজেলার বিভিন্ন মাদ্রাসায় দান করা হয়েছে বলে সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান পিন্টু জানান।

একডালা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আজিজার রহমান জানান, এবারের ভিজিএফ চাল বিতরণে পুকুর চুরির মত অনিয়ম হয়েছে। আমাদেরকে ৫০ বস্তা করে চাল বিতরণের জন্য দিয়েছে। সেটা যথাযথ ভাবে বিতরণ করা হয়েছে। পরে জানতে পারি পরিষদে আরো ৪০ বস্তা চাল আছে। এই চাল গুলো আমার মনে হয় গোপনে রাখা হয়েছিল। কেন না বিতরণের দিনই তালিকাভুক্তরা চাল নিয়ে গেছে। এই চাল কোথায় থেকে আসলো? কারই বা প্রাপ্য ছিল? বিষয়টি খতিয়ে দেখা দরকার।

সংশ্লিষ্ট তদারকি কর্মকর্তা উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ অফিসার অমল কুমার রায় জানান, আমি কিছু চাল বিতরণ করে বাকী চাল বিতরণের জন্য চেয়ারম্যানকে কাগজপত্র বুঝিয়ে দিয়ে একটি প্রশিক্ষনের জন্য রাণীনগরে ফিরে আসি।

একডালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল ইসলাম জানান, এখানে চাল বিতরণে কোনো অনিয়ম হয়নি। তবে মঙ্গলবার চাল বিতরণ করার পর তালিকা ভূক্তিদের যে ৪০ বস্তা ছিল, কোন নীতিমালাই তা বিতরণ করা হবে এই অপেক্ষায় আছি আমি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া বিনতে তাবিব জানান, চাল বিতরণে কিছু অনিয়ম হয়েছে। কেন না মঙ্গলবার চাল বিতরণ করার পর যদি কিছু চাল রয়ে যায়, সেটা অবশ্যই ট্যাক অফিসার ও চেয়ারম্যান নীতিমালার আলোকে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো উচিত ছিল কিন্তু সেটা চেয়ারম্যান করেনি। তাই আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বুধবার বিকেল ৫টার মধ্যে চাল বিতরণে ব্যর্থ হলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত জানাই।


দৈনিক ডেসটিনি’র অনলাইনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


প্রকাশক ও সম্পাদক : মোহাম্মদ রফিকুল আমীন।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মিয়া বাবর হোসেন।
© ২০০৬-২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক ডেসটিনি.কম
আলী’স সেন্টার, ৪০ বিজয়নগর ঢাকা-১০০০।
বিজ্ঞাপন : ০১৫৩৬১৭০০২৪, ৭১৭০২৮০
email: ddaddtoday@gmail.com, ওয়েবসাইট : www.dainik-destiny.com
ই-মেইল : destinyout@yahoo.com, অনলাইন নিউজ : destinyonline24@gmail.com
Destiny Online : +8801719 472 162